শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৫৩ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
টরকী বন্দরের ডাকাতির নিউজ করায় সাংবাদিকের উপর হামলা আশুলিয়া থানা যুবলীগের শীর্ষ পদ চায় কে এই রাজু দেওয়ান? রক্তাক্ত ১৫ আগষ্টে ৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠান ময়মনসিংহে রওশন এরশাদের পক্ষে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে জাপার জাতীয় শোক দিবস পালন।। বানারীপাড়ায় জাতীয় শোক দিবস পালন ও হত দরিদ্রদের মাঝে চেক ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ জাপা চেয়ারম্যান জিএম কাদের সাথে বাবুলের সাংগঠনিক বিষয়ে পরামর্শ ও আলোচনা বঙ্গমাতার জন্মদিনে বানারীপাড়ায় সেলাই মেশিন বিতরণ ময়মনসিংহের অষ্টধার ইউনিয়নে গণটিকার উদ্ভোধন করলেন চেয়ারম্যান তারেক হাসান মুক্তা।। তারাকান্দায় এডিসি ও ইউএনও’র গণটিকা কার্যক্রম পরিদর্শন।। সিরাজদিখানে গাজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার
বাহুবলের চোরেরা রাজার হালে

বাহুবলের চোরেরা রাজার হালে

মশিউর রহমান,বাহুবল ( হবিগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের বাহুবলে গভীর রাতে কৃষকের ঘর থেকে গরু চুরি করে ঈদগাহ মাঠের পাশে জবাই করে চামড়া ফেলে মাংস নিয়ে পালিয়েছে চোরেরা। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার দিবাগত রাতে উপজেলার সদর ইউনিয়নের বালিচাপড়া গ্রামে।

জানা যায়, বাহুবল উপজেলার ৪নং সদর ইউনিয়নের বালিচাপড়া গ্রামের প্রবাসী বাচ্চু মিয়ার পরিবারের লোকজন রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। তারা শেষ রাতে ঘুম থেকে উঠে পাশের ঘরের দরজা খোলা দেখতে পান। এসময় পরিবারের লোকজন ঘরে প্রবেশ করে দেখেন গাভী গরুটি নেই । তারা বিভিন্ন জায়গায় খোজাখুজি করে গরুটি না পেয়ে বাড়িতে চলে যান।

পরে সকাল বেলা গরুর চামড়া ও পা-গুলো চন্দনিয়া গ্রামের ঈদগাহ মাঠের পাশে দেখতে পান স্থানীয় লোকজন। খবর পেয়ে বাচ্চু মিয়ার পরিবারের লোকজন সেখানে গিয়ে তাদের চুরি হওয়া গরুর চামড়া ও পা-গুলো দেখে তাদের গাভীর চামড়া বলে সনাক্ত করেন । এ ঘটনায় বালিচাপড়া এলাকায় এলাকায় চোর- ডাকাত আতংক বিরাজ করছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, তাদের এলাকায় এ ঘটনা নতুন কিছু নয়। তারা চোর ডাকাতদের ভয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। ওই এলাকার চিহ্নিত চোর ডাকাতরা রাতের আধারে বাদশাহী হালে গায়ে হাওয়া লাগিয়ে প্রকাশে্য ঘুরে বেড়াচ্ছে। এ সব চোর ডাকাতদের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খোললে তাদের ও পরিবারের উপর নেমে আসে অমানবিক এবং পাশবিক নির্যাতন।

জানা গেছে মাস দুয়েক আগে চোর ডাকাত দমনে বালিচাপড়া ও চন্দনিয়া এলাকায় একাধিক বিচার সালিশ বসলেও কোন কাজ হয়নি। উল্টো চোর ডাকাতদের দলই শক্তিশালী হয়ে উঠে। স্থানীয়দের অভিযোগ , এ পর্যন্ত দেড় ডজনেরও অধিক চুরি ডাকাতির ঘটনা ঘটেলেও চোর ডাকাতদের বিরুদ্ধে পুলিশ প্রশাসন জোরালো কোন পদক্ষেপ নেয়নি। এতে চোর ডাকাত সক্রিয় হয়ে উঠেছে।

এলাকাবাসী বলেন আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি, থানা পুলিশের পক্ষ থেকে কোন পদক্ষেপ না নিলে একের পর এক ঘটনা ঘটতেই থাকবে। তারা বলেন আমরা নিরাপত্তা চাই। স্থানীয় কয়েকটি গ্রামের অধিকাংশ মানুষ প্রবাসে থাকার কারণে চোর ডাকাতের বিচরণ ক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে চন্দনিয়া বালিচাপড়া এলাকা।

Please Share This Post in Your Social Media






© natunbazar24.net কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD