মঙ্গলবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:১১ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
টরকী বন্দরের ডাকাতির নিউজ করায় সাংবাদিকের উপর হামলা আশুলিয়া থানা যুবলীগের শীর্ষ পদ চায় কে এই রাজু দেওয়ান? রক্তাক্ত ১৫ আগষ্টে ৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠান ময়মনসিংহে রওশন এরশাদের পক্ষে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে জাপার জাতীয় শোক দিবস পালন।। বানারীপাড়ায় জাতীয় শোক দিবস পালন ও হত দরিদ্রদের মাঝে চেক ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ জাপা চেয়ারম্যান জিএম কাদের সাথে বাবুলের সাংগঠনিক বিষয়ে পরামর্শ ও আলোচনা বঙ্গমাতার জন্মদিনে বানারীপাড়ায় সেলাই মেশিন বিতরণ ময়মনসিংহের অষ্টধার ইউনিয়নে গণটিকার উদ্ভোধন করলেন চেয়ারম্যান তারেক হাসান মুক্তা।। তারাকান্দায় এডিসি ও ইউএনও’র গণটিকা কার্যক্রম পরিদর্শন।। সিরাজদিখানে গাজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার
আশুলিয়ার জামগড়া মোল্লা বাড়ির ভেতর তিন-তরুণী ধর্ষণ ও অপহরণ

আশুলিয়ার জামগড়া মোল্লা বাড়ির ভেতর তিন-তরুণী ধর্ষণ ও অপহরণ

বিশেষ প্রতিনিধিঃ ঢাকার আশুলিয়ার ইয়ারপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের জামগড়া মোল্লা বাড়ি একের ভেতরে তিন, ২জন তরুণী ধর্ষণ ও এক মাদ্রাসার ১০ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী অপহরণের ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।
রবিবার ৮ নভেম্বর ২০২০ইং সন্ধ্যা ৬ টার দিকে সাব্বির (২২), ও তার সহযোগী ৩ বন্ধু একটি মাইক্রোবাসে মীমরাতুন (১৬) এক মাদ্রাসার ছাত্রীকে অপহরণ করে নিয়ে পালিয়েছে। রাতেই এ ব্যাপারে ওই ছাত্রী মীমের মা মোছাঃ খালেদা পারভীন বাদী হয়ে মামলা করার জন্য সাব্বিরসহ ৫জনকে আসামী করে আশুলিয়া থানায় অভিযোগ করেছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, আশুলিয়ার জামগড়া মোল্লা বাড়ি মোড়ে বরিশালের আবুল বাশার এর বাড়ির ভাড়াটিয়া সাব্বির এর বাবা মোঃ রাকিব হোসেন (৪৫), তার দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে ভাড়া থাকেন, ৩দিন আগে গ্রামের বাড়ি বরিশাল থেকে বাবার বাসায় আসে সাব্বির।
৯ নভেম্বর রাত সাড়ে ১২ টার দিকে অভিযোগ পেয়ে আশুলিয়া থানার (এস আই) আল মানুন কবির সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে জামগড়া মোল্লা বাড়ি এলাকায় ঘটনাস্থলে এসে তদন্ত করেন, তিনি বলেন, ভিকটিম উদ্ধার ও আসামী গ্রেফতার করতে ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে, অপরাধী সে যেইহোক না কেন তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে বলে এই পুলিশ কর্মকর্তা জানান।
এর আগে জামগড়া মোল্লা বাড়ি একই এলাকার সাইফুল ইসলাম মোল্লার বাড়ির ভাড়াটিয়া (১৩) বছরের এক তরুণী ধর্ষণের ঘটনায় অপহরণ এবং ৩দিন পর থানায় মামলা, প্রায় এক মাসেও ভিকটিম উদ্ধার ও আসামী গ্রেফতার করতে পারেনি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, এ মামলার বাদী ভিকটিমের বাবার আজিজ এর সাথে মিমাংসার জন্য বিভিন্ন ভয় দেখানো হচ্ছে বলে তিনি গণমাধ্যমকে জানান।
উক্ত মামলা সূত্রে জানা গেছে, ধর্ষণ ও অপহরণের ঘটনায় বরগুনা জেলার ক্রোক থানার মঈন উদ্দিন পঞ্জাবের ছেলে ১নং আসামী মোঃ সজিব পঞ্জাব (২৫), একই এলাকার জামাল খানের ছেলে ২নং আসামী সুজন খান (২৫), ৩নং আসামী জাকির হোসেন (৪৮), ও আশুলিয়ার জামগড়ার মোল্লা বাড়ির ঘটনাস্থল বাড়ির মালিক সাইফুল ইসলাম মোল্লা (৫০) কে ৪নং আসামী করলেও প্রায় এক মাসেও ভিকটিম উদ্ধার ও আসামী গ্রেফতার হয়নি। ভুক্তভোগী ভিকটিমের বাবা বলেন, আমি রিক্সা চালাইয়া জীবিকা নির্বাহ করি, আমার স্ত্রী গার্মেন্টর্সে চাকুরি করে। ১ ও ২নং আসামী-৩নং আসামীর নাতী পরিচয়। ১ নং আসামী তার নানা জাকিরের ভাড়া বাসায় বেড়াইতে আসিয়া গত ১১অক্টোবর ২০২০ইং সকাল ১০ টার দিকে সুজন খানের সহযোগীতায় সজিব পাঞ্জাব তাদের ওই রুমে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে ১৩ বছরের নাবালিকা মেয়েকে। তিনি আরও বলেন, এ ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর, ১ ও ২নং আসামীদ্বয়-৩ ও ৪নং আসামীর সহায়তায় অসৎ উদ্দেশ্যে মেয়েটাকে ফুসলাইয়া অপহরণ করে নিয়ে পালিয়েছে, এখন মেয়েটি কোথায় আছে, কেমন আছে, বেঁচে আছে, না কি আসামীরা তাকে হত্যা করে লাশ গুম করেছে, তা কেউ জানিনা।
এ বিষয়ে অনেকেই জানান, আশুলিয়ার জামগড়া মোল্লাবাড়ির সাইফুল ইসলাম মোল্লার বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ রয়েছে, তিনি একাধিক বাড়ির মালিক, তার নিজস্ব বাড়িতে কোনো নারী নির্যাতন ও ধর্ষণের ঘটনা ঘটলেই বিবাদীর কাছ থেকে বিচারের নামে কৌশলে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ রয়েছে। এমনকি ময়লা পরিস্কার করে এক ব্যক্তির বাসা থেকে ইঞ্জিন মটর, টিভি ও নগদ টাকা নেয়ার অভিযোগ তার বিরুদ্ধে। অনেকেই বলেন, তিনি একজন ফিটিংবাজ ও চাঁদাবাজ। এ বিষয়ে গণমাধ্যম কর্মীরা সাইফুল মোল্লাকে প্রশ্ন করলে তিনি প্রথম দিন এ বিষয়ে এড়িয়ে যান।
উক্ত তরুণীর ধর্ষণ ও অপহরণ ঘটনার ব্যাপারে প্রথমে তদন্ত করেন, আশুলিয়া থানার (এস আই) আল নূর তারেক, এরপর (এস আই) জসিম উদ্দিন তদন্ত শেষে গত ১৫/১০/২০২০ইং তারিখে আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ৪২/৬৭৮। এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই জসিম গণমাধ্যমকে জানান, এই তরুণী ধর্ষণ ও অপহরণকারীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। তিনি আরও বলেন, অপরাধী সে যেই হোক না কেন তাদেরকে গ্রেফতার করা হবে, ভিকটিম নিখোঁজ রয়েছে, ভিকটিম উদ্ধার ও আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।
গত ২ নভেম্বর ২০২০ইং জামগড়া মোল্লা বাড়ির সাইফুল মোল্লার পাশের বাড়ি বগুড়ার এক সুন্দরী তরুণীকে বিয়ের কথা বলে সুমন মিয়া (২৩) একাধিকবার ধর্ষণ করে পালিয়েছে। এ ব্যাপারে ওই বাড়ির ম্যানেজার আক্তার মিয়া বলেন, এ ধর্ষণের ঘটনা সত্য। এ ব্যাপারে মামলা হলেও আসামী গ্রেফতার হয়নি। উক্ত জামগড়া মোল্লা বাড়ি একের ভেতর ৩টি ঘটনার ব্যাপারে যারা জড়িত তাদেরকে গ্রেফতার ও ভিকটিম উদ্ধারসহ উক্ত বিষয়ে পুলিশ ও র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উপর মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন ভুক্তভোগী পরিবার ও সচেতন মহল।##

Please Share This Post in Your Social Media






© natunbazar24.net কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD