সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০৩:০৬ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
এড. সুজার মৃত্যুতে জাপার রাজনীতিতে যে শূণ্যতার সৃষ্টি হলো তা পূরণীয় হবার নয়- রওশন এরশাদ।। কালিহাতীতে পিকনিকের নৌকা থেকে নদীতে পড়ে ঘাটাইলের যুবক নিখোঁজ মধুপুরে আকাশী ফুলবাড়ী মোড় হতে রানিয়াদ ভাঙ্গা বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত সড়কের বেহাল অবস্হা শোকাবহ আগস্টের প্রথম দিনে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নির্দেশনায় মুন্সিগঞ্জে খাদ্য বিতরণ কর্মসূচি পালন করেছে ছাত্রলীগ। আশুলিয়ায় চার মাদক ব্যবসায়ী ও মিরপুরে ৩৭জুয়ারীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব! নড়াইলে অবসরে যাওয়া পুলিশ সদস্যদের সন্মাননাসহ সুসজ্জিত গাড়িতে করে বিদায় জানালো, এসপি প্রবীর কুমার রায় খুলনার পাইকগাছায় ৪ বছরের শিশু ধর্ষণ মামলায় স্মারকলিপি প্রদান প্রশাসনের মাইকিং অমান্য করে পাইকগাছার চাঁদখালীতে লকডাউনের মধ্যে গরুর হাট বসানোর অভিযোগ পাইকগাছায় ভাঙ্গা মাটির ঘরে তপন বিশ্বাসের মানবেতর জীবন যাপন পাইকগাছায় ৫ জুয়াড়ি আটক : থাানায় মামলা
তারাগঞ্জে বিয়ের দাবিতে ছেলের বাড়ি’তে স্কুলশিক্ষিকার অনশন

তারাগঞ্জে বিয়ের দাবিতে ছেলের বাড়ি’তে স্কুলশিক্ষিকার অনশন

খলিলুর রহমান খলিল নিজস্ব প্রতিনিধি।

রংপুরের তারাগঞ্জে বিয়ের দাবিতে তিন দিন ধরে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান নিয়ে অনশন শুরু করেছেন মুক্তি রানী (২৩) নামে এক স্কুলশিক্ষিকা। কিন্তু প্রেমিকার এমন কর্মকাণ্ডে লোকলজ্জায় প্রেমিক নন্দরাজ বাড়ি ছেড়ে গাঢাকা দিয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে তারাগঞ্জ উপজেলার সয়ার ইউনিয়নে।

প্রতিবেশীদের মাধ্যমে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তারাগঞ্জ উপজেলার সয়ার ইউনিয়নের শ্যামগঞ্জ গ্রামের বাসিন্দা ও শ্যামগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অনন্ত কুমার রায়ের পুত্র নন্দরাজ রায়ের (২৬) সাথে দীর্ঘদিন প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন পার্শ্ববতী নীলফামারী জেলার কিশোরগঞ্জ উপজেলার কেল্লাবাড়ি বাবুপাড়া গ্রামের ভুপেন্দ্র নাথ রায়ের কন্যা মুক্তি রানী (২৩)। তিনি আবার তারাগঞ্জ জিকেএস স্কুল ও কলেজের সহকারী শিক্ষিকা। ওই প্রেমিক-প্রেমিকা তাদের ভালোবাসার বন্ধন পাকাপোক্ত করতে প্রায় এক বছর আগে গোপনে আদালতে এফিডেফিট করে বিয়ে করেন। কিন্তু এর মধ্যে গত প্রায় তিন মাস থেকে হঠাৎ প্রেমিক নন্দরাজ প্রেমিকা মুক্তি রানীর সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। শত চেষ্টায় মুক্তি রানী নন্দকে নাগালে নিতে পারছিলেন না। পরে কোনো উপায় না পেয়ে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় ওই শিক্ষিকা প্রেমিক নন্দরাজের বাড়িতে গিয়ে ওঠেন। এ অবস্থায় নন্দরাজ বাড়ি থেকে সটকে পড়েন।

নন্দরাজের পিতা অনন্ত রায়ের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, ছেলে যাই করুক না কেন। এই মেয়েকে মেনে নেওয়া ছাড়া উপায় নেই। অন্যদিকে মুক্তি রানীর সাথে কথা হলে সে জানায়, আমাকে নন্দরাজ কোর্টে নিয়ে বিয়ে করেছেন। কিন্তু এর মধ্যে সে আমার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। অনেক চেষ্টার পরেও তার কোনো খোঁজ পাচ্ছিলাম না। এ কারণে বাধ্য হয়ে আমি স্ত্রীর অধিকার প্রতিষ্ঠা করতেই নন্দরাজেই বাড়ি এসেছি। তার বাড়িতে বউ হিসাবেই থাকব।

‘অভিযুক্ত’ নন্দরাজের মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, প্রেমিকা মুক্তি রানীকে কোর্টে নিয়ে বিয়ে করেছি এটা ঠিক। কিন্তু ওর সাথে কথা ছিল আগে নিজের পায়ে দাঁড়াই, পরে বাড়িতে নেব। কিন্তু মুক্তি এর আগেই বাড়িতে চলে আসবে ভাবতে পারিনি।

Please Share This Post in Your Social Media






© natunbazar24.net কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD