বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ০১:৫৪ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
শাজাহানপুরে মাদক ব‍্যবসায়ী নল্লে গ্রেফতার কেশবপুরে একজন সাংবাদিকসহ করোনা পজিটিভ ১০ জন ব্যক্তি মহেশপুরে শহীদ জিয়াউর রহমান ডিগ্রী কলেজের অধ্যাপক ডিটুলের মৃত্যুতে দোয়া মাহফিল ও স্মৃতি চারণে স্বরণ সভা অনুষ্ঠিত। পাইকগাছায় জেলা বিএনপির উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ পাইকগাছায় ভ্রাম্যমান আদালতে মাদকাসক্ত এক যুবককে ৬ মাসের জেল পাইকগাছায় আইনজীবিদের সাথে ওসির মতবিনিময় রাজশাহীসহ তিন অঞ্চলের শিক্ষা কর্মকর্তা, প্রধান শিক্ষকদের নিয়ে এসাইনমেন্ট বিষয়ে সভা অনুষ্ঠিত। সিরাজদিখানে অবৈধ পার্কিংয়ের দায়ে ৩৬টি অটোরিকশা আটক হবিগঞ্জের অলিপুর প্রাণ কোম্পানির শ্রমিকের মৃত্যু বরগুনার তালতলীতে সাংবাদিককে পিটিয়ে আহত
সুন্দরগঞ্জে অধিকাংশ বয়স্কভাতার টাকা অচেনা নাম্বারে দায় নেবে কে!

সুন্দরগঞ্জে অধিকাংশ বয়স্কভাতার টাকা অচেনা নাম্বারে দায় নেবে কে!

মোঃ আনিসুর রহমান আগুন, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃ
গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় বয়স্ক ভাতা,প্রতিবন্ধী ভাতাসহ বিভিন্ন সুবিধাভোগী অধিকাংশদের ভাতার টাকা রহস্যজনক ভাবে ভুল নাম্বারে গিয়েছে।
বিভিন্ন সুত্রের তথ্য মতে, উপজেলার ৪৫ হাজার সুবিধাভোগীর অধিকাংশদের ভাতার টাকা ভুল নাম্বারে চলে গেছে। যার কারণে এসব অসহায় বয়স্ক বৃদ্ধ,বৃদ্ধা ও প্রতিবন্ধীর চরম বিড়ম্বনায় পড়েছে। যতদিন তারা ব্যাংকে গিয়ে তাদের ভাতার টাকা তুলেছিলেন ততদিন তেমন কোন সমস্যায় পড়তে হয়নি। সরকার যখন তাদের হয়রানি কমানোর জন্য সেবা দোরগোড়ায় পৌছানোর চেষ্টা করছেন তখন এক শ্রেণীর অসাধু মহল তাদের প্রতারণা ফাঁদে ফেলিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে হাজার হাজার ভাতার টাকা। সমাজসেবা অফিসের কথামত নগদ একাউন্টধারী মোবাইল নাম্বার দেয়া হলেও রহস্যজনক ভাবে ভাতার ৩ হাজার ৪৮টাকা অচেনা-অজানা ভুল নাম্বারে চলে গেছে। যা মোটেও বিশ্বাস যোগ্য নয়। কেন না সমাজসেবা অফিসের পক্ষ থেকে ওই সমস্ত নগদ একাউন্ট খুলে দেয়া হয়। তাছাড়া প্রত্যেক সুবিধাভোগী তাদের নাম্বার নিজ নিজ ভাতা পরিশোধ বহির উপর লিখে জমা দেন। তাহলে এসব ভুল হয় কি করে! রামজীবন ইউনিয়নের সূর্বণদহ গ্রামের মৃত ইসমাইল গেন্দলার ছেলে বয়স্ক ভাতা সুবিধাভোগী আজহার আলী বলেন,বাহে মুই নগদ একাউন্ট হিসেবে ০১৭৮৮-৪৫০৬০৭ নাম্বার দিছনু। অথচ মোর টাকা ঢুকছে ০১৭৫৯-০২৭০৪৩ নাম্বারে। একই এলাকার মৃত আকাব্বর আলীর স্ত্রী ফমিনা বেওয়া জানান, মুই ০১৭০১-৯২৫৪৫৩ নম্বর বইয়ের উপরত লেখি দিছম। আর মোর ট্যাকা বোলে ০১৬২৩-৬৫৭৯৫৭ নম্বরত গেইছে। ফোন দিলি ওগল্যা কিবেন কিবেন কয় মুই বোঝমে না। এনিয়ে জনমনে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। অনেকের ধারণা যেসব ভুল নাম্বারে টাকা গেছে সেগুলো সমাজসেবা অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ এর সাথে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নিজস্ব আত্নীয় সজনের নাম্বার। তা না হলে এত ভুল হওয়া মোটেও সম্ভব নয়। তারা আরও মনে করে তাদের কল ট্রাক করলেই ধরে জানা যাবে। এব্যাপারে উপজেলা সমাজসেবা অফিসার গৌতম কুমার বিশ্বাসের নিকট এসব অসঙ্গতির তথ্য চাইলে সে দিতে অস্বীকার করে বলেন, এর দায় নগদ কর্মীদের। পরে বিষয়টি নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আল মারুফের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, কিছু সুবিধা ভোগীর সমস্যা হয়েছে। আমি সংশিষ্টদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেছি। একারণে সবার মাঝে নানা রকম কৌতুহল দেখা দিয়েছে তাহলে এসব ভুল কি সত্যিই অসহায় বয়স্ক ও নিরহ প্রতিবন্ধীদের! তা যদি না হয় তাহলে আসলে এর দায় নেবে কে!

Please Share This Post in Your Social Media






© natunbazar24.net কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD