বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ১২:০০ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
শাজাহানপুরে মাদক ব‍্যবসায়ী নল্লে গ্রেফতার কেশবপুরে একজন সাংবাদিকসহ করোনা পজিটিভ ১০ জন ব্যক্তি মহেশপুরে শহীদ জিয়াউর রহমান ডিগ্রী কলেজের অধ্যাপক ডিটুলের মৃত্যুতে দোয়া মাহফিল ও স্মৃতি চারণে স্বরণ সভা অনুষ্ঠিত। পাইকগাছায় জেলা বিএনপির উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ পাইকগাছায় ভ্রাম্যমান আদালতে মাদকাসক্ত এক যুবককে ৬ মাসের জেল পাইকগাছায় আইনজীবিদের সাথে ওসির মতবিনিময় রাজশাহীসহ তিন অঞ্চলের শিক্ষা কর্মকর্তা, প্রধান শিক্ষকদের নিয়ে এসাইনমেন্ট বিষয়ে সভা অনুষ্ঠিত। সিরাজদিখানে অবৈধ পার্কিংয়ের দায়ে ৩৬টি অটোরিকশা আটক হবিগঞ্জের অলিপুর প্রাণ কোম্পানির শ্রমিকের মৃত্যু বরগুনার তালতলীতে সাংবাদিককে পিটিয়ে আহত
রাণীনগরে আমন ধানের বাম্পার ফলন ॥ চলছে ধান কাটার ধূম

রাণীনগরে আমন ধানের বাম্পার ফলন ॥ চলছে ধান কাটার ধূম

নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁর রাণীনগরে চলতি আমন মৌসুমে উপজেলার কৃষকরা বাম্পার ফলন পাচ্ছেন। ইতিমধ্যেই উপজেলার প্রায় ৩শত ৫০হেক্টর জমির আমন ধান কাটা সম্পন্ন হয়েছে। বাজারে ধানের দাম ভালো থাকায় কৃষকরা কয়েক দফার বন্যার ক্ষতি অনেকটাই পুষিয়ে নিতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করছে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলমি আমন মৌসুমে উপজেলার মোট ১৮হাজার ১শত ৪০হেক্টর জমিতে বিভিন্ন জাতের আমন ধান চাষ হয়েছে যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি। আমন ধান রোপনের কিছুদিন পরই হানা দেয় ৪বারের বন্যা। এতে করে কিছুটা ক্ষতি হয় নিম্মা লের আমন ধান। কৃষি অফিসের সার্বিক সহযোগিতা যে সকল কৃষকরা ব্রি ধান-৮৭ জাতের ধান চাষ করেছিলেন তারা ইতিমধ্যেই ধান কর্তন করা শুরু করেছেন। বিঘা প্রতি কৃষকরা ব্রি ধান-৮৭ এর ফলন পাচ্ছেন ১৮-২০মণ হারে। কারণ এই জাতটি আগাম পরিপক্ক ধানের জাত। এই জাতের ধানে রোগবালাইয়ের আক্রমণ অনেক কম, বালাইনাশক প্রয়োগ করতে হয় কম এবং ফলনও অনেক বেশি হয়। যার কারণে কৃষকরা এই জাতের ধান কেটে ওই জমিতে সরিষা, গমসহ অন্যান্য সবজি চাষ করতে পারবেন। তাই আশা করা হচ্ছে কৃষকরা আমন ধানের বাম্পার ফলন থেকে বন্যার ক্ষতি অনেকটাই পুষিয়ে নিতে পারবেন।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ শহীদুল ইসলাম বলেন আমন ধান রোপনের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত কৃষকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে পরামর্শ প্রদানসহ সার্বিক সহযোগিতা ও খোঁজখবর নিচ্ছে কৃষি অফিসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। যার কারণে এবার আমন ক্ষেতে কোথাও কোন ক্ষতিকর পোকা ও রোগের আক্রমণ দেখা যায়নি। উপজেলার সকল কৃষকদের ঘরে আমন ধান পুরোপুরি না ওঠা পর্যন্ত মাঠ পর্যায়ে আমাদের এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। ইতিমধ্যেই নমুনা শস্য কর্তন করে কৃষকদের ধান কাটতে উদ্বুদ্ধ করেছি। চলতি আমন মৌসুমে কৃষকরা বাম্পার ফলন পাবেন। এতে করে আমন ধানের লভ্যাংশ থেকে কৃষকরা বন্যার ক্ষতি অনেকটাই পুষিয়ে নিতে পারবেন বলে আমি আশাবাদি। কারণ বর্তমানে বাজারে ধানের দামও অনেকটাই ভালো আছে।

একেএম কামাল উদ্দিন টগর
নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি।।

Please Share This Post in Your Social Media






© natunbazar24.net কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD