মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ০১:৪৮ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
নড়াইলে মাসিক কল্যাণ সভায় সন্মাননা স্বীকৃতি স্বরূপ ক্রেস্ট ও নগদ অর্থ পুরস্কার প্রদান করলেন এসপি প্রবীর কুমার রায়। সুজানগর-চিনাখড়া সড়কের বেহাল দশা শাজাহানপুরে চার মাস পর বন্দিদশা থেকে মুক্ত হলেন গৃহবধূ বাজারে বিক্রি হচ্ছে রাসায়নিকযুক্ত আম নেই কোনো প্রশাসনিক নজরদারি গাজীপুর মহানগরে ২২ নং ওয়ার্ডে কিশোর গ্যাং, মাদক বিরোধী সভা অনুষ্ঠিত বাকেরগঞ্জ রঙ্গশ্রী ৬ নং ওয়ার্ডের জনপ্রিয় সাধারন সদস্য প্রার্থী নাজমা’র ভ্যান গাড়ি মার্কার প্রচার-প্রচারণায় এলাকাবাসী। ক্ষেতলালে বয়স্ক, বিধবা, প্রতিবন্ধীর টাকা ভূতুড়ে একাউন্টে জগন্নাথপুরে মাসুম হত্যার ঘটনায় কাউন্সিলর সাফরোজকে মামলায় অর্ন্তভূক্ত করা ও আসামীদের গ্রেপ্তারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন রামখানা ইউপির সার্বিক উন্নয়নের প্রত্যয় আবু বক্কর সিদ্দিকের বেগমগঞ্জে অস্ত্র ও গুলিসহ আটক ১
পরকীয়া প্রেমের বলি পুঠিয়ায় এক গৃহবধু,পরকীয়া প্রেমিক মনিরুল ইসলাম

পরকীয়া প্রেমের বলি পুঠিয়ায় এক গৃহবধু,পরকীয়া প্রেমিক মনিরুল ইসলাম

মাজেদুর রহমান( মাজদার) 
পুঠিয়া প্রতিনিধিঃ পুঠিয়ায় সকিনা বেগম (৩৫) নামের এক গৃহবধু পরকীয়ার বলি হয়েছে। পরকীয়ার বলি গৃহবধু সকিনা বেগম উপজেলা জিউপাড়া ইউনিয়নের ধোপাপাড়া গ্রামের আব্দুল গফুরের মেয়ে। ঘটনাটি ঘটেছে নাটোর জেলার নলডাঙ্গা উপজেলার পাটুল গ্রামে।

সকিনা বেগমের বাবা আব্দুল গফুর জানান, গত ২০০৬ সালে নাটোর জেলার পাটুল গ্রামের নুরুল আমিনের ছেলে মনিরুল ইসলামের সাথে তাঁর মেয়ের বিয়ে হয়। আমার মেয়ের সংসারে দুইটি সন্তান রয়েছে। গত জুলাই মাসে ২৬ তারিখে মনিরুল ঔই এলাকার আমেনা বেগম নামের এক বিবাহিত মহিলার সাথে পরকিয়া প্রেমের মাধ্যমে পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করে।

বিয়ের পর থেকে মনিরুল তার মেয়ের খোঁজখবর নেওয়া বন্ধ করে দেয়। তখন কোন উপায় না থাকায় আমার মেয়ে সাকিনা বেগম ও তার দুই সন্তান নিয়ে জামাইয়ের বাড়িতে অবস্থান করে। গত সেপ্টেম্বর মাসের ২২ তারিখে মনিরুল ও আমেনা বেগম আমার মেয়েকে শারিরিক নির্যাতন করে তার কাছে থাকা সোনার গহনা ও নগদ টাকা পয়সা জোরপূর্বক কেড়ে নিয়ে এক কাপড়ে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।

পরে সকিনা বেগম বাদি হয়ে নলডাঙ্গা থাকায় একটি অভিযোগ দায়ের করে। এছাড়াও কোর্টে এ বিষয়ে একটি মামলা রয়েছে বলে তিনি জানান।

আব্দুল গফুর আরো বলেন, বর্তমানে আমার মেয়ে সকিনা ও তার দুই সন্তান আমার বাড়িতে অবস্থান করছে। তাদের নিয়ে অশান্তিতে দিন নিপাত করার পাশাপশি প্রতারক জামাইয়ের বিচার দাবি করেন তিনি।

এবিষয়ে নলডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ নজরুল ইসলাম বলেন, সারা নলডাঙ্গা জুড়ে এই অবস্থা। যেহেতু থানার আগে কোর্টে এ বিষয়ে একটি মামলা রয়েছে তাই আমাদের করা কিছু ছিলো না। তবে কোর্ট থেকে এই মামলা তদন্তে আসলে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা নিব।#

Please Share This Post in Your Social Media






© natunbazar24.net কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD