মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ০১:৪৭ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
নড়াইলে মাসিক কল্যাণ সভায় সন্মাননা স্বীকৃতি স্বরূপ ক্রেস্ট ও নগদ অর্থ পুরস্কার প্রদান করলেন এসপি প্রবীর কুমার রায়। সুজানগর-চিনাখড়া সড়কের বেহাল দশা শাজাহানপুরে চার মাস পর বন্দিদশা থেকে মুক্ত হলেন গৃহবধূ বাজারে বিক্রি হচ্ছে রাসায়নিকযুক্ত আম নেই কোনো প্রশাসনিক নজরদারি গাজীপুর মহানগরে ২২ নং ওয়ার্ডে কিশোর গ্যাং, মাদক বিরোধী সভা অনুষ্ঠিত বাকেরগঞ্জ রঙ্গশ্রী ৬ নং ওয়ার্ডের জনপ্রিয় সাধারন সদস্য প্রার্থী নাজমা’র ভ্যান গাড়ি মার্কার প্রচার-প্রচারণায় এলাকাবাসী। ক্ষেতলালে বয়স্ক, বিধবা, প্রতিবন্ধীর টাকা ভূতুড়ে একাউন্টে জগন্নাথপুরে মাসুম হত্যার ঘটনায় কাউন্সিলর সাফরোজকে মামলায় অর্ন্তভূক্ত করা ও আসামীদের গ্রেপ্তারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন রামখানা ইউপির সার্বিক উন্নয়নের প্রত্যয় আবু বক্কর সিদ্দিকের বেগমগঞ্জে অস্ত্র ও গুলিসহ আটক ১
বরিশালে তৃষা হত্যার রহস্যউন্মোচন মদ খেয়ে স্বামী এসে দেখলো স্ত্রী চ্যাটিংয়ে ব্যস্ত, অতঃপর খুন

বরিশালে তৃষা হত্যার রহস্যউন্মোচন মদ খেয়ে স্বামী এসে দেখলো স্ত্রী চ্যাটিংয়ে ব্যস্ত, অতঃপর খুন

বরিশালঃ

স্বামী বাপ্পি কর্মকারের বাংলা মদ খাওয়ার অভ্যেস পুরানো। আর স্ত্রী তৃষা কর্মকারের ফেসবুক চালানোর প্যাশন ছিল। উভয়ের মধ্যে পরস্পর বিরোধী অবস্থান নিয়ে ঝগড়ার সূত্রপাত। আর তাতেই উত্তেজিত স্বামী স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে মৃত্যু নিশ্চিত করে লাশ নিয়ে যান হাসপাতালে। সেখান থেকে পালানোর চেষ্টা চালান। তবে পুলিশের জালে শেষমেষ ধরা পরেন অভিযুক্ত খুনি বাপ্পি। আর স্বামীর হাতে প্রাণ হারানো এতিম তৃষার লাশ বুঝিয়ে দেওয়া হয় একমাত্র ভাই সাগর কর্মকারের হাতে।

আত্মহত্যার সূত্র ধরে তদন্তে নেমে এমন তথ্যই পেয়েছে বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশ। তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই ফিরোজ আল মামুন বলেন, নারী আত্মহত্যা করেছেন এমন সংবাদ পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আলামত আর ওই ঘরের বাসিন্দাদের বর্নণার ভিন্নতা দেখে সন্দেহ। বেশ কিছু প্রশ্নের সঠিক উত্তর না মেলায় স্বামী সুমন কর্মকার ওরফে বাপ্পীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করি। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। এমনকি আদালতেও জবানবন্দী দিয়েছেন।

পুলিশ অভিযুক্ত ঘাতক বাপ্পী কর্মকারের স্বীকারোক্তির বরাত দিয়ে জানান, স্বরূপকাঠি উপজেলার নেছারাবাদ থানার দইহাটি গ্রামের এতিম তৃষা কর্মকারের সাথে দুই বছর আগে বিয়ে হয় বরিশাল নগরীর হাসপাতাল রোডের বাসিন্দা রবীন্দ্রনাথ কর্মকারের ছেলে বাপ্পী কর্মকারের। বিয়ের পর তৃষা জানতে পারেন তার স্বামী বাপ্পী মাদকাসক্ত। এ নিয়ে এর আগেও ঝামেলা হয়েছে। ওদিকে তৃষা ফেসবুক চালাতো, ম্যাসেঞ্জারে চ্যাটিং করতো। স্ত্রীর এই আসক্তি আবার মানতে পারেনি বাপ্পী কর্মকার। এ নিয়ে দু’ জনের মধ্যে ঝামেলা হতো। তবে তা খুব বেশি পর্যায়ে নয়।

তবে হত্যাকান্ডের দিন অর্থাৎ ২ অক্টোবর রাত সাড়ে ১১টার দিকে ঘরে ফেরেন বাপ্পী কর্মকার। স্ত্রী তৃষা কর্মকারের কাছে ভাত চাইলে তিনি ভাত দিয়ে স্বামীকে খাবার ঘরে রেখে শোয়ার ঘরে গিয়ে ফেসবুক চালাচ্ছিলেন। খাবার শেষে বিষয়টি নিয়ে আপত্তি তোলেন বাপ্পী কর্মকার। তখন তৃষা কর্মকার স্বামীর মদ খাওয়ার বিষয়টি নিয়ে পুনরায় কথা বলেন। এতে উভয়ের মধ্যে ঝগড়া বাধে। বাপ্পী তার স্ত্রীকে গালিগালাজ করেন এবং মৃত পিতা-মাতা সর্ম্পকে খারাপ কথা বলেন। কষ্ট পেয়ে তৃষা ঘরে থাকা ব্লেড দিয়ে নিজের হাত কেটে শোয়ার খাটে বসে কাঁদছিলেন।

ওই সময়ে নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে স্ত্রী তৃষা কর্মকারের গলায় থাকা ওড়না দিয়ে শ্বাসরোধ করেন বাপ্পী। এভাবে মৃত্যু নিশ্চত না হওয়া পর্যন্ত ওড়না পেচিয়ে রাখেন। যখন বুঝতে পারেন তৃষা মারা গেছেন তখন নিজেকে বাঁচাতে গাড়িতে করে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান বাপ্পী এবং পরিবারের অন্যান্যদের সাথে আত্মহত্যা বলে প্রচার করেন।

এসআই ফিরোজ আল মামুন জানিয়েছেন, তৃষার ভাই সাগর কর্মকার বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। শনিবার আটককৃত বাপ্পী আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দী প্রদান করেছেন। ##

Please Share This Post in Your Social Media






© natunbazar24.net কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD